৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম | বেস্ট গেমিং পিসি


বাজেট গেমিং পিসি0 2018
গেমিং পিসি

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম

 

আসসালা মুআলাইকুম বন্ধুরা আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব ৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম। এই গেমিং পিসি তে সব ধরনের গেম খেলতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া। বাংলাদেশের গেমার দের কথা মাথায় রেখেই এই গেমিং কম্পিউটার তৈরি করা। আপনি শুধু এই কম্পিউটারে গেমিং না তার পাশাপাশি ভালো মানের ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া। তাহলে চলুন গেমিং পিসি তৈরি করা শুরু করি।

 

এখন অনেকের মনে একটা প্রশ্ন থাকতে পারে এই কম্পিউটার কোন ধরনের মানুষের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এই কম্পিউটার মূলত গেমারদের কথা মাথায় রেখে ও কনটেন্ট কৃষ্ণের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে। এই কম্পিউটারে যেমন আপনি ভালো গেমিং করতে পারবেন তেমন আপনি ভালো ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া। এই কাজগুলো বাদে বাকি যত কাজ আছে একটা কম্পিউটার করা যায় সবগুলো কাজ করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া।

 

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করতে যে সকল কম্পোনেন্ট ব্যবহার করছে এই কম্পোনেন্টগুলো এই বাজেটের সব থেকে ভালো। এই কম্পোনেন্টগুলো আপনি যেকোনো লোকাল কম্পিউটারের সব থেকে কিনে কম্পিউটার বানাতে পারেন। আপনি যদি এর আগে কখনো নিজের কম্পিউটার তৈরি না করে থাকেন তাহলে আমি মনে করি আপনার আশেপাশে লোকাল যেকোনো কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারের মাধ্যমে কম্পিউটার তৈরি করা ভালো।

 

বেস্ট গেমিং পিসি

 

গেমিং পিসি তৈরি করতে আপনার যদি কোন প্রকার সাহায্য প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে নক করতে পারেন। আমাদের ফেসবুক গ্রুপের নাম হল Bangladesh Gamer । এই গ্রুপে অসংখ্য বাংলাদেশী গেমার আছে কেউ না কেউ আপনাকে সাহায্য করবে। কেউ যদি সাহায্য না করতে পারে আমিতো আছি আপনাকে সাহায্য করার জন্য। তাহলে এখনি জয়েন হয়েছেন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে ফেসবুক পেজ। Bangladesh Gamer Facbook group

 

গেমিং পিসি কম্পোনেন বিবরণ

 

মাদারবোর্ড : এই গেমিং পিসি তে মাদারবোর্ড হিসেবে ব্যবহার করছি MSI এর B350M Mortar মাদারবোর্ডটি। আপনারা অবশ্য এর থেকে কম দামে B350 মাদারবোর্ড মার্কেটে পেয়ে যাবেন। আমরা জাস্ট কালার ও এস্থেটিকের বিবেচনায় এই মাদারবোর্ডটি চয়েজ করেছি। আর B350 মাদারবোর্ডের বিশেষত্ব হচ্ছে বাজেট চিপসেট হওয়া সত্ত্বেও এটি প্রসেসর ওভারক্লক ও হাই ব্যান্ডউইথ মেমোরি সাপোর্ট করে। প্রায় প্রত্যেক রাইজেন মাদারবোর্ডে প্রসেসর সকেতের দুপাশে দুটি প্লাস্টিকের ব্র্যাকেট থাকে। আপনারা যদি আমাদের মত AM4 কুলার ব্যাবহার করতে চান তারা অবশ্যই কুলার ইন্সটল করার আগে স্ক্র ড্রাইভার দিয়ে ব্র্যাকেট দুটি খুলে নেবেন।

 

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি এ মাদারবোর্ডেরটি সবথেকে ভালো। MSI এর B350M Mortar মাদারবোর্ড ব্যবহার করার কারণে আপনি ভবিষ্যতে গেমিং কম্পিউটার টি কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া আপডেট করতে পারবেন। এই মাদারবোর্ড দাম পরবে ৯০০০ টাকা।

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম

 

প্রসেসর : প্রসেসর হিসেবে আমরা ব্যবহার করছি এ এম ডির রাইজেন সিরিজের R3 1300X প্রসেসর। এতে আছে ৪ কোর ও ৪ থ্রেড। এর বেইজ স্পীড হচ্ছে ৩.৫ গিগাহারটজ যা টার্বো বুস্ট হয়ে সকল কোরে ৩.৭ গিগাহারটজ পর্যন্ত উঠবে। এছাড়াও এই প্রসেসরে পাবেন 2 MB L2 কেইশ এবং 8 MB L3 কেইশ। এর টিডিপি হচ্ছে ৬৫ ওয়াট। অর্থাৎ ওভারক্লক না করলে বুস্ট স্পীডেও আপনারা সীমার মধ্যেই তাপমাত্রা পাবেন। তবে রাইজেনের কোন প্রসেসরেই ইন্টিগ্রেটেড গ্রাফিক্স নেই। আপনারা ইচ্ছে করলে এক ধাপ এগিয়ে R5 1400 প্রসেসরও নিতে পারেন। তবে বাজেটের সাথে সামঞ্জস্যতা রাখার জন্য আমরা 1300X ব্যবহার করছি।

 

এ এম ডির রাইজেন সিরিজের বেশিভাগ প্রসেসর ওভারক্লক করা যায়। তেমনি এই প্রসেসরটি ওভারক্লক করতে পারবেন খুব সহজে। কিন্তু আমাদের এই প্রসেসরকে ওভারক্লক করার কোন পরিকল্পনা নেই। তাই সিপিইউ কুলার হিসবে আমরা ব্যাবহার করব প্রসেসরের সাথে আসা স্টক রেইথ স্টেলথ কুলারটি। বলে রাখা ভাল রাইজেনের 1800X, 1700X ও 1600X ছাড়া সকল প্রসেসরের সাথে আপনারা স্টক এয়ার কুলার পাবেন। ৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসিএই প্রসেসরের দাম পরবে ১৩,৮০০ টাকা।

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম

 

সিপিইউ কুলার : আমরা যেহেতু প্রসেসরটি ওভারক্লক করবো না তাই  আমরা  প্রসেসরের সাথে আসা রেইথ স্টেলথ কুলারটিই ব্যাবহার করছি। আপনার বাজেট থাকলে আপনি বাজারে যে কোন একটি ভালো মানের কুলার ব্যবহার করতে পারেন। আপনি চাইলে ৩.৬ গিগাহারটজ পর্যন্ত স্টক কুলারটি ব্যাবহার করতে পারবেন।


মেমোরি : আমরা ৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তে র‍্যাম হিসেবে আমরা ব্যবহার করছি TEAM এর Elite+ 8 GB 2400 MHz DDR4 র‍্যাম ৮ জিবি । বর্তমানে যেহেতু র‍্যামের বাজার অনেকটাই গরম তাই ৮ জিবির বেশি র‍্যাম এখান নেয়া যাচ্ছে না। আপনি চাইলে ভবিষ্যতে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আরও বেশি র‍্যাম ব্যবহার করতে পারবেন। বর্তমানে বাজেট কম থাকার কারণে আমরা কম র‍্যাম ব্যবহার করেছি।

ভবিষ্যতে আপনারা দুইটা 8GB+8GB 16GB RAM ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে আপনার কম্পিউটারের স্পিড অনেক গুন বেড়ে যাবে। এই র‍্যাম দাম পরবে ৮৫০০ টাকা।


হার্ডড্রাইভ : এখানে আমরা ব্যাবহার করেছি সিগেইট বারাকুডা ১ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক। এক্ষেত্রে আপনারা যে কোন ধরণের হার্ডডিস্ক ব্যাবহার করতে পারেন। তবে নিউএগ ও এমাজনে ৪.৮ স্টার দেখেই এই হার্ডডিস্ক আমরা পছন্দ করেছি। আমাদের বাজেট কম থাকার কারণে আমরা SSD ব্যবহার করতে পারিনি। তাছাড়া গেমিং যখন এখানে মুখ্য বিষয় তাই আধুনিক গেমগুলোর সাইজ চিন্তা করে আর SSD ব্যবহার করিনি। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং আমি মনে করি একটা SSD ব্যবহার করতে প্রয়োজন। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৪ হাজার টাকা। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৪ হাজার টাকা। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৪ হাজার টাকা।


গ্রাফিক্স কার্ডে : ৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি এই বাজেটে গেমিং পিসি তৈরি করতে গেলে অসংখ্য গ্রাফিক্স কার্ডের অপশন থাকে কিন্তু সব থেকে ভাল গ্রাফিক্স কার্ডে খুঁজে পাওয়া কষ্টকর ব্যাপার। এই গেমিং কম্পিউটার গ্রাফিক্স কার্ড হিসেবে আমরা ব্যবহার করছি GTX 1050 Ti 4GB GDDR5 জিপিইউটি। আমি মনে করি এই বাজেটের মধ্যে সবথেকে ভালো গ্রাফিক্স কার্ড হল এই গ্রাফিক্স কার্ড। এই গ্রাফিক্স কার্ডের সাহায্যে আপনি ভালো গেমিং এর পাশাপাশি ভালো মানের ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে 18,200 টাকা।

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম

 

কেসিং : এবার আসা যাক কম্পিউটারের সকল কম্পোনেন্ট গুলো কে এক জায়গায় রেখে কানেক্ট করার জিনিস যার নাম হল চেসিস।২০১৭ সাল কেসিং হিসেবে ব্যবহার করা হতো টেম্পারড গ্লাস এবং আরজিবি লাইটিঙ।আর যেহেতু আমরা ৫৬ হাজার টাকা গেমিং পিসি তৈরি করব তাই দুটো জিনিস মাথায় রেখে আমরা সবচেয়ে বেস্ট কেচিং খুঁজে বের করার চেষ্টা করি।

 

বিভিন্ন রিভিউ এবং নিউএগে রেটিং দেখার অবশেষে আমরা খুঁজে বের করি থার্মালটেকের ভিউ ২১ কেসিংটি। এই কেসিং এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে আপনারা উভয় সাইড প্যানেলে পাবেন টেম্পারড গ্লাস যা অন্যান্য বাজেট টিজি কেসিঙ্গে দেখা যায় না। Thermaltake View 21 TG/Black/Win/SPCC/Tempered Glass*2 চাইলে আপনাদের মনের মত করে কেসিং বেছে নিতে পারেন। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৫,০০০ টাকা।

 

৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি


আরেকবার দেখে নেয়া যাক কী কী জিনিস আমরা ব্যবহার করছি

  • প্রসেসর = RYZEN 3 1300X 4 = দামঃ ১৩,৮০০ টাকা
  • মাদারবোর্ড = MSI B350M MORTAR, = দামঃ ৯০০০ টাকা
  • মেমোরি = TEAM 14 Vulcan RED U DIMM-D4 2400 CL15-17-17-35 1.2V = দামঃ ৮৫০০ টাকা
  • হার্ডড্রাইভ = সিগেইট বারাকুডা ১ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক = ৪ হাজার টাকা।
  • (পিএসইউ) = Thermaltake Smart RGB/0500W/ = দামঃ ৪৮০০ টাকা
  • গ্রাফিক্স কার্ড  = GTX 1050 Ti 4GB GDDR5  = দামঃ 18,200 টাকা
  • কেসিং = Thermaltake View 21 TG = দামঃ ৫,০০০ টাকা

এই কম্পিউটারে আমার গেম খেলা ও ভিডিও এডিটিং অনুভূতি তুলে ধরা হলো আপনাদের।

 

GTA 5 : এই গেমিং কম্পিউটার আপনি হাই গ্রাফিক্সের GTA 5 গেম খেলতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। বাজেটের তুলনায় কম্পিউটার গেম খেলা অনুভূতি ছিল অনেক ভালো আমার। GTA 5 হাই গ্রাফিক্সের ফুল এইচডি সেটিং এ খেলতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই।

 

PUBG PC : আমি প্রায় দুই দিনের বেশি PUBG PC গেম খেলছি PUBG গেমটি খেলার অনুভূতি ছিল অনেকটাই ভালো। এই গেমিং কম্পিউটার কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া PUBG PC গেমটি খেলতে পারবেন হাই সেটিং এ কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি  টি এ বাজেটের মধ্যে অনেক ভালো এই ডেমোক্রেটিক।

 

PUBG PC LITE : কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই PUBG PC LITE গেমটি খেলতে পারবেন হাই সেটিং-এ কোন। গ্রাফিক্স কোয়ালিটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে এই গেমিং কম্পিউটারে। পাশাপাশি ইমুলেটর সাহায্যে মোবাইল পাবজি গেম খেলতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই হাই সেটিং-এ।

 

ফটোশপ গ্রাফিক্স ডিজাইন : আমরা এই কম্পিউটারে অ্যাডোবি ফটোশপ ও গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেখেছি। ৫৬ হাজার টাকার গেমিং পিসি তে কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করতে পারবেন। আপনারা যে কোন গ্রাফিক্স সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারবেন কোন সমস্যা হবে না। যারা গ্রাফিক্স নিয়ে কাজ করেন তাদের জন্য খুব ভালো একটি কম্পিউটার এটা। আপনি যদি একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকেন তাহলে 8GB + 8GB 6GB RAM ব্যবহার করতে পারেন। অনেক ভালো হবে আমি মনে করি।

 

ভিডিও এডিটিং : বাংলাদেশের ইউটিউবার দের কথা মাথায় রেখে আমরা এই কম্পিউটারে ভিডিও এডিটিং করে দেখেছি। এই কম্পিউটারে আপনি HD+ ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন খুব সুন্দর ভাবে কোন সমস্যা ছাড়া। 2K ভিডিও এডিটিং করতে গেলে মাঝে মাঝে ভালো লেঘের দেখা পেতে হবে। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি এই বাজেটের মধ্যে অনেক ভালো একটি ভিডিও এডিটিং কম্পিউটার।

 

কোডিং : কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপ করতে গেলে কোন ভালো মানের কম্পিউটার লাগেনা। আপনার কাছে যদি সাধারণ কম্পিউটার থাকে তাহলে আপনি এই সকল কাজ খুব সুন্দর ভাবে করতে পারবেন। আপনি যদি এই ৮৫ হাজার টাকার গেমিং কম্পিউটার কে কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপে ব্যবহার করেন  তাহলে শুধু আপনার টাকা নষ্ট হবে আর কিছু না। কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপ সবথেকে ভালো হবে ল্যাপটপ অথবা ম্যাকবুক।

 

আপনার ভালো লেগেছে। এই বাজেট গেমিং পিসিটি আপনার কাছে কিরকম লেগেছে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন। গেমিং পিসি তৈরি করতে আপনার যদি কোন প্রকার সাহায্য প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে নক করতে পারেন। আমাদের ফেসবুক গ্রুপের নাম হল Bangladesh Gamer । এই গ্রুপে অসংখ্য বাংলাদেশী গেমার আছে কেউ না কেউ আপনাকে সাহায্য করবে। কেউ যদি সাহায্য না করতে পারে আমিতো আছি আপনাকে সাহায্য করার জন্য


© Gamestipsbd.com
Design & Developed BY GamesTipsBD.com